বিয়ানীবাজার সংবাদ

বিয়ানীবাজারে ব’ন্যার পানি বেড়েছে, চিড়া ও মুড়ির দামে আ’গুন!

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বিয়ানীবাজারে ব’ন্যা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় আশ্রয়কেন্দ্রের সংখ্যা বাড়ছে, বেড়েছে আশ্রয়কেন্দ্রে ব’ন্যা দুর্গত মানুষের ভিড়। ব’ন্যার প্রভাবে বিয়ানীবাজারে শুকনো খাবারের দাম বেড়েছে প্রায় দ্বিগুন, কিছু শুকনো খাবারের সংকটও দেখা দিয়েছে। দুর্গত মানুষের জন্য শুকনো খাবার চিড়া ও মুড়ি কিনতে হিমশিম খাচ্ছে প্রশাসন ও স্বেচ্ছাসেবীরা।

বাজার ঘুরে দেখা যায়, সহায়তার ক্ষেত্রে শুকনো খাবারের মধ্যে সবচেয়ে বেশী চিড়া ও মুড়ি দেয়া হয়, সেই চিড়ার দাম বর্তমানে ৮০ থেকে ১০০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে, যা কয়েকদিন আগে ছিলো ৫৫-৬০ টাকা, মুড়ির ক্ষেত্রে তা প্রায় দ্বিগুন ৬০ টাকার মুড়ি এখন বিক্রি হচ্ছে ১১০ টাকায়। এছাড়াও চাল, আলু পেয়াজ থেকে শুরু করে নিত্যপ্রয়োজনীয় অনেক পন্যের দাম উর্ধ্বমুখী।

এব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যবসায়ী বলেন, আমাদের কিছু করার নেই, চাহিদা অনুযায়ী ন্যায্য মূল্যে মাল পাওয়া যাচ্ছেনা, আনানো যাচ্ছে তাই দাম বাড়ছে।

বিয়ানীবাজার উপজে’লা নির্বাহী অফিসার আশিক নূর জানান, ব’ন্যা মোকাবিলায় স্থানীয় প্রশাসন কাজ করে যাচ্ছে। দুর্গত এলাকায় ত্রাণ কার্যক্রম চলমান রয়েছে। যাদের ঘরবাড়িতে ব’ন্যার পানি প্রবেশ করেছে তাদেরকে নিকটবর্তী আশ্রয়কেন্দ্র কিংবা বিদ্যালয় ভবনে আশ্রয় নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

বিয়ানীবাজার উপজে’লা চেয়ারম্যান আবুল কাশেম পল্লব বিভিন্ন জায়গায় সরকারি-বেসরকারি ও প্রবাসীদের অর্থায়নে উপজে’লার বিভিন্ন এলাকায় ত্রান কার্যক্রম অব্যহত রেখেছেন। তিনি অনেকটা ক্ষোভের সাথে জানান, প্রয়োজনের তুলনায় সরকারি ত্রান অ’প্রতুল। প্রবাসী অনেকে এগিয়ে এসেছেন, তবে সরকারিভাবে দেয়া ত্রানের বিকল্প নেই। এসময় তিনি শুকনো খাবারের দাম-বৃদ্ধির কথা উল্লেখ করে বলেন, দেশের দূর্যোগকালীন মুহুর্তে এরকম প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদির জোগাড় করতে হিমশিম খাচ্ছেন, তাই দাম বৃদ্ধির ব্যাপারে ব্যবসায়ী নেতারা এগিয়ে আসবেন।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!