সারাদেশ

ফেসবুকে ‘বয়স-মৃ'ত্যু’ নিয়ে স্ট্যাটাস দেওয়া যুবক সড়ক দু'র্ঘ'ট'নায় নি'হ'ত

নিউজ ডেস্ক- নিজের ফেসবুক আইডিতে ‘বয়স-মৃ'ত্যু’ নিয়ে একাধিক স্ট্যাটাস দেওয়া যুবক গো'লাম মোস্তফা মিশু আজ রোববার বিকেল ৩টায় সাতকানিয়া-বাঁশখালী সড়কের এওচিয়ার টেক এলাকার দক্ষিণে মোটরসাইকেল দু'র্ঘ'ট'নায় মা'রা গেছেন।

চলতি বছরের ২০ জুন, ‘আল্লাহতায়ালা আমাদের সবাইকে মৃ'ত্যুর প্রস্তুতি গ্রহণ করার তৌফিক দান করুন, আমিন।’ ৪ আগস্ট ‘কোনো নোটিফিকেশন ছাড়াই একদিন মালাকুল মউত এসে হাজির হবে। তবে আমাদের সবার মৃ'ত্যুটা যেন ঈ'মানের সাথে হয়, আমিন।’ সর্বশেষ গত ৫ সেপ্টেম্বর ‘যেদিন মোড়াবো সাদা কাফনে, কাছের মানুষটাও বলবে দেরি কেন; তাড়াতাড়ি দাফন করো।’ এমন স্ট্যাটাস নিজের ফেসবুক আইডিতে দেন তিনি।

তাঁর নাম গো'লাম মোস্তফা মিশু। তিনি দক্ষিণ চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজে'লার কাঞ্চনা ইউনিয়নের বকশিরখিল গ্রামের মোহাম্ম'দ কা'মাল পাশার ছে'লে। তাঁর মৃ'ত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

সাতকানিয়া থা'নার ভা'রপ্রাপ্ত কর্মক'র্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন মিশুর মৃ'ত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ওসি জানান, আজ বিকেল ৩টায় সাতকানিয়া-বাঁশখালী সড়ক দিয়ে বাইক চালিয়ে সাতকানিয়ার দিকে আসার সময় এওচিয়ার টেকের রাস্তায় পড়ে যান মিশু। এ সময় স্থানীয় লোকজন তাঁকে মুমূর্ষু অবস্থায় উ'দ্ধা'র করে সাতকানিয়া উপজে'লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাঁকে মৃ'ত ঘোষণা করেন। পরে তাঁর লা'শ বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়।

নি'হ'ত মিশুর বাবা কা'মাল পাশা বলেন, ‘আমা'র ছে'লে অনেক ভালো ছিল। সে যুবলীগের রাজনীতির সঙ্গে জ'ড়ি'ত ছিল। আমা'র ছে'লেকে কেউ পরিক'ল্পি'তভাবে হ'ত্যা করেছে।’ কারা এমন ঘটনা ঘটাতে পারে—এমন প্রশ্নের জবাবে প্রশাসন সুষ্ঠুভাবে ত'দ'ন্ত করলে বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে যাবে বলে জানান তিনি।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে সাতকানিয়া থা'নার ওসি আনোয়ার হোসেন বলেন, বাইক চালানো অবস্থায় গাড়ি থেকে পড়ে গিয়ে অ'জ্ঞা'ন হয়ে যান মিশু। পরে স্থানীয় লোকজন তাঁকে সাতকানিয়া উপজে'লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃ'ত ঘোষণা করেন।

সাতকানিয়া উপজে'লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বরত মেডিকেল অফিসার ডা. শোভন আর্চায্য বলেন, গো'লাম মোস্তফা মিশু নামের এক যুবককে লোকজন হাসপাতা'লে নিয়ে আসে। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে হাসপাতা'লে আসার আগেই তাঁর মৃ'ত্যু হয়েছে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। শরীরে কোনো আ'ঘাতের চিহ্ন না থাকলেও সড়ক দু'র্ঘ'ট'নায় ওই যুবকের মৃ'ত্যু হয়েছে। শরীরের অভ্যন্তরে র'ক্তক্ষরণজনিত কারণে তাঁর মৃ'ত্যু হয়েছে বলে আম'রা ধারণা করছি

Back to top button