সিলেট

সিলেটে সচল হতে শুরু করেছে বিদ্যুৎ ব্যবস্থা

টাইমস টিভি ডেস্কঃ প্রায় ৩১ ঘণ্টা বিদ্যুৎবিহীন থাকার পর সিলেট নগরীতে সচল হতে শুরু করেছে বিদ্যুৎ ব্যবস্থা। বুধবার (১৮ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৬টা ১০ মিনিট থেকে নগরের কিছু এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ চালু হয়। তবে কিছু এলাকায় বিদ্যুৎ ফিরলেও নগরীর বেশির ভাগ এলাকাই এখনো অন্ধকারে রয়েছে।

প্রায় ৩১ ঘণ্টা পরীক্ষামূলকভাবে সরবরাহের প্রথম ধাপে সিলেট নগরের আম্বরখানা ও এমসি কলেজ ফিডারে বিদ্যুৎ সংযোগ চালু হয়েছে। পর্যায়ক্রমে নগরের সব এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ চালু হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন ও বিতরণ বিভাগ সিলেটের প্রধান প্রকৌশলী খন্দকার মোকাম্মেল হোসেন। তবে টানা বিদুৎহীনতার কারণে মঙ্গলবার থেকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয় নগরবাসীকে।

এরআগে মঙ্গলবার সকাল ১১টায় সিলেটের কুমা’রগাওয়ে জাতীয় গ্রিড লাইনে আ’গুন লাগে। এরপর থেকেই বিদ্যুহীন হয়ে পড়ে পুরো সিলেট জে’লা। এছাড়া সুনামগঞ্জের কয়েকটি এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ হয়ে পড়ে। এতে বিপাকে পড়েন এই দুই জে’লার বিদ্যুতের প্রায় সাড়ে ৪ লাখ গ্রাহক। মঙ্গলবার দুপুরের মধ্যেই আ’গুন নিয়ন্ত্রণে আনে ফায়ার সার্ভিস। তবে পু’ড়ে যায় দুটি ট্রান্সমিটার ও একটি কন্ট্রোল প্যানেল।

আ’গুন নিয়ন্ত্রণে আসার পরই ক্ষতিগ্রস্ত যন্ত্রপাতি মেরামতে নামেন বিদ্যুত বিভাগের প্রায় ৪শ’ কর্মী। ঢাকা থেকে নিয়ে আসা হয় ট্রান্সমিটার। টানা প্রায় ২৭ ঘণ্টা মেরামত কাজের পর বুধবার সন্ধ্যা ৬টার পর বিদ্যুৎ সরবরাহ সচল হতে থাকে।বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন ও বিতরণ বিভাগ সিলেটের প্রধান প্রকৌশলী খন্দকার মোকাম্মেল হোসেন বলেন, সন্ধ্যা ৬টায় এমসি কলেজ ও আম্বরখানা ফিডারে বিদ্যুৎ সরবরাহ চালু করা হয়েছে। আমাদের কাজ চলছে, পর্যায়ক্রমে সব এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হবে।

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, ভয়াবহ অ’গ্নিকা’ণ্ডের ঘটনা ঘটলেও ওই এলাকার ফিডগুলো তুলনামূলক কম ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তাই দ্রুত সময়ের মধ্যে মেরামত করে এসব সচল করা হচ্ছে। এর আগে মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) সকাল সোয়া ১১টার দিকে আ’গুন লাগার পর বিদ্যুতবিহীন হয় সিলেট শহরসহ বিভাগের বেশ কয়েকটি অঞ্চল।

Back to top button