অপরাধ

এমপি বাহারের টেন্ডার সিন্ডিকে’টে জি’ম্মি সরকারি প্রতিষ্ঠান

টাইমস টিভি ডেস্কঃ কুমিল্লার সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো এমপি বাহার সিন্ডিকে’টের কাছে জি’ম্মি। সিন্ডিকে’টে বাহার পরিবার ও সম’র্থকদের ৮টি ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান রয়েছে। আর এদের মাধ্যমেই কাজ করাতে বাধ্য সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো। গত ২ বছরে এই টেন্ডার সিন্ডিকেট দেড় হাজার কোটি টাকার ১০৯ প্রকল্পের কাজ পেয়েছে। আর এসব টেন্ডার বাণিজ্যে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার অ’ভিযোগ এমপি বাহারের বি’রু’দ্ধে। তবে, এমপি বাহারের সহযোগীরা বলছেন, টেন্ডারে নিয়ন্ত্রণ থাকলেও বাণিজ্যের অ’ভিযোগ মিথ্যা।কুমিল্লায় পাহাড় কে’টে সড়ক নির্মাণ করায় ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান হাসান টেকনো বিল্ডার্স ও হক এন্টারপ্রাইজ বি’রু’দ্ধে মা’ম’লার সুপারিশ করে পরিবেশ অধিদপ্তর। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সরকারি কর্মক’র্তাকে এলাকা ছাড়া করার হু’মকি দেন স্থানীয় সংসদ সদস্য বাহাউদ্দিন বাহার। প্রশ্ন উঠেছে, ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে বাহারের স’ম্প’র্ক কি?

খোঁজ নিয়ে যানা যায়, কুমিল্লার বেশিরভাগ সরকারি টেন্ডার নিয়ন্ত্রণ করেন এমপি বাহার। নিজ পরিবার এবং সম’র্থকদের ৮টি ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের সিন্ডিকে’টের দখলে কুমিল্লার বেশিরভাগ টেন্ডার। এগুলোর মধ্যে নিজের নামে মেসার্স কন্সট্রাকশন অ্যান্ড ইকুইপমেন্ট সা’প্লাইয়ার। মে’য়ের জামাই সাইফুল ই’স’লা’ম রনি নামে মেসার্স সাইফুল ই’স’লা’ম রনি। ব্যবসায়িক পার্টনার ও কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নাজমুল হাসানের হাসান টেকনো বিল্ডার্স। ব্যবসায়িক পার্টনার মোহাম্ম’দ আলমের রানা বিল্ডার্স। আরেক পার্টনারের হক এন্টারপ্রাইজ। ব্যবসায়িক পার্টনার আবু বকর সিদ্দিকের নামে আরএবি-আরসি লিমিটেড। কুমিল্লা মহানগর সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জহিরুল আলম রিন্টুর ই’স’লা’ম এন্টার প্রাইজ ও কুমিল্লা মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য হাসান ই’মামের মেসার্স হামিম অ্যান্ড ব্রাদার্স।জাতীয় ই-জিপি পোর্টালে খোঁজ করে যানা যায়, গত ২ বছরে এমপি বাহারে মেসার্স কন্সট্রাকশন অ্যান্ড ইকুইপমেন্ট সা’পলাইয়ারের নামে ৬৫৭ কোটি টাকার ৫৫টি প্রকল্প অনুমোদন হয়েছে। হাসান টেকনো বিল্ডার্স লিমিটেড পেয়েছে ৩৭৮ কোটি টাকার ৯ প্রকল্প। রানা বিল্ডার্স লিমিটেড পেয়েছে ২৪০ কোটি ৪ প্রকল্প। হক এন্টারপ্রাইজ পেয়েছে ৪১ প্রকল্পে যার বাজেট ১৬৯ কোটি টাকা। কুমিল্লা চেম্বার অব কমা’র্সের সভাপতির অ’ভিযোগ, সাংসদের ক্ষমতার অ’পব্যবহার করেই বাগিয়ে নিয়েছেন এসব টেন্ডার। বাহারকে চাঁদা না দিলে কুমিল্লায় মেলে না কোনো টেন্ডার।

শুধু ক্ষমতা দিয়েই নয়, বাহার বি’রু’দ্ধে জো’র করে ভ’য়-ভীতি দেখিয়ে অন্যের টেন্ডারও হাতিয়ে নেয়ার অ’ভিযোগ। ঢাকার এক ঠিকাদারের অ’ভিযোগ, অক্টোবরে কুমিল্লার শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের ফার্নিচার সরবরাহের একটি প্রকল্প তার কাছ থেকে ছিনিয় নিয়েছে বাহারের সম’র্থকেরা।তবে, এসব অ’ভিযোগের তোয়াক্কা করেন না এমপি বাহার। উল্টো তার ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বি’রু’দ্ধে কেউ কিছু বললে, প্রকাশ্যে হু’মকি দেন তিনি।কমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক আনিসুর রহমান মিঠু দাবি করে জানান, এমপি বাহারের বি’রু’দ্ধে সরকারি টেন্ডার বাণিজ্যের অ’ভিযোগ উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।এমপি বাহারের কারণে কুমিল্লার বেশিরভাগ ঠিকাদার ক্ষতিগ্রস্ত হলে প্রকাশ্যে মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছেন না কেউ।

Back to top button